Borhan IT https://www.borhanit.com/2020/12/blog-post_95.html

রুট ছাড়া ইন্টার্নাল স্টোরেজ খালি করার সেরা ৮ উপায়

 "স্টোরেজ রানিং আউট", "ক্লিয়ার সাম স্পেইস" এই কথাগুলোর সাথে আমরা এন্ড্রয়েড ইউজাররা প্রায় সবাই পরিচিত। ফোনের স্টোরেজ যখন কমে যায় তখন স্পেস খালি করার জন্য ক্রমাগত এধরনের নটিফিকেশন আসতে থাকে যা খুবই বিরক্তিকর। আজকাল প্রায় সব এন্ড্রয়েডই মোটামুটি মিনিমাম ১৬ জিবির মতো ইন্টার্নাল স্টোরেজ দিয়ে থাকে কিন্তু তবুও এটা যথেষ্ট নয় মোটেও কেননা 4k ভিডিও, হাই কোয়ালিটি ইমেইজ, গ্রাফিক্স কিংবা হাই রেজুলেশন গেইমিংয়ের জন্য স্টোরেজের চাহিদা আরো অনেক বেশি থাকে। ফলস্বরূপ, আমাদের স্টোরেজ খুব জলদি ফুরিয়ে যায়। সুতরাং, আজকে আমি একটি কমপ্লিট গাইড দেখাবো যার মাধ্যমে আমরা সহজেই এন্ড্রয়েডে ইন্টার্নাল স্পেস খালি করতে পারবো।



১. ক্যাশ ডাটা ক্লিয়ার করুন

আপনার ইন্টার্নাল স্টোরেজ ফুরিয়ে যাচ্ছে জাতীয় সমস্যায় পড়লে সবচেয়ে প্রথম যে সহজ কাজটি করতে পারেন তা হলো ফোনের ক্যাশ ডাটা ক্লিয়ার করে ফেলা। সোশ্যাল মিডিয়া বা বিভিন্ন ব্রাউজারের ক্যাশ ডাটা, ইমেইজ ইত্যাদি ক্লিয়ার করুন।

এটা করার জন্য আপনার স্টোরেজ সেটিংয়ে যান এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজে ট্যাপ করুন। এখানে কোন কোন এপ কেমন ক্যাশ রেখেছে দেখতে পাবেন, এরপর Cached Data তে ক্লিক করুন সেগুলো ডিলেটের জন্য। পরে Ok চেপে নিশ্চিত করুন।



বলে রাখি যে, আপনি যদি মোবাইল ডাটা ব্যবহারকারী হন, সেক্ষেত্রে কিন্তু ক্যাশ ডাটা আপনার এমবির খরচ অনেকটা বাঁচাতে সাহায্য করে, তাই এদিকটা ভেবে নেবেন।

২. বড় ফাইল খুঁজে নিন, অপ্রয়োজনীয় ফাইল মুছে দিন

পরবর্তী যে কাজটি আপনি করতে পারেন সেটি হচ্ছে ফোনের যত বড় বড় ফাইল আছে সেগুলো রিমুভ করে নিতে পারেন। আমাদের বিভিন্ন এইচডি ভিডিও বা মুভি ফাইলগুলো এক্ষেত্রে টার্গেট হতে পারে। তবুও পুরো ফোন খুঁজে বড় বড় ফাইল বের করাটা বেশ কষ্টসাধ্য কাজ হতে পারে। তাই আপনার কষ্ট সহজ করার জন্য আছে Storage Analyzer & Disk Usage app। এটি আপনাকে আপনার ফোনের সবচেয়ে বড় ১০ টি ফাইল বের করে দেখাবে।

প্রথমে এপটি ইনস্টল করে এর নেভিগেশন ড্রয়ারে যান, দেখতে পাবেন Biggest files অপশন। এতে ট্যাপ করে আপনি বড় বড় সব ফাইল দেখতে পেয়ে যাবেন এবং যেটা ডিলেট করতে চান সেটা চেপে ধরে রাখলেই ডিলেটের অপশন ও পেয়ে যাবেন।



৩. ডুপ্লিকেট ফাইল এবং ছবি মুছে দিন

আমরা একটা এন্ড্রয়েড দীর্ঘদিন ব্যবহার করলে এবং বেশি APK ও PDF ফাইল ব্যবহারের ফলে এই ডুপ্লিকেট ফাইল জমতে থাকার সমস্যাটি দেখা দেয়। প্রায়ই দেখা যায় একটা ভালো ছবির জন্য দশটা ছবি তুলি, বাকি নয়টা ডিলেট করতে ভুলে যাই। এসবই আসলে ডুপ্লিকেট হয়ে জমে থাকে আর ফোনের স্টোরেজ কমায়। এসমস্ত সমস্যার সহজ সমাধান করা সম্ভব Gallery Doctor নামক এপটি দিয়ে। এটা আপনাকে একসাথে বাজে এবং ডুপ্লিকেট ফাইলগুলো দেখাবে ও ডিলেট করার সুবিধা দেবে। ডিলেটের আগে রিভিউ ও করতে পারবেন।

এপটি লঞ্চের পর প্রথমে এটি আপনার সকল ফটোস স্ক্যান করবে এবং এরপর আপনার পুরো গ্যালারির একটা হেলথ রিপোর্ট তুলে ধরবে। এখানে দেখা যাবে একগুচ্ছ Bad Photos ও Similar Photos। আপনার কাজ হবে শুধু ছবিগুলো রিভিউ করে যেটা রাখার সেটা রাখবেন, বাকিসব ডিলেট করে দেবেন। স্পেস খালি হতে থাকবে সহজেই।



তবে এই এপ মূলত কাজ করে ছবির জন্য। অপ্রয়জনীয় ও ডুপ্লিকেট ডকুমেন্ট বা ফাইল ডিলেটের জন্য ব্যবহার করতে পারেন Duplicated Files Finder app টি।

৪. অপ্রয়োজনীয় এপ্স ঝেঁটিয়ে বিদায় করুন

আপনি যদি একজন পাক্কা এন্ড্রয়েড ইউজার হয়ে থাকেন, আপনি খুব সম্ভবত প্রায়ই নিত্যনতুন এপ ইনস্টল করে থাকেন নানান ইন্টারেস্টিং কাজের জন্য কিংবা গেইম খেলার জন্য। সুতরাং, ফোনে অপ্রয়োজনীয় এপ জমে থাকার বেশ ভালো সম্ভাবনা আছে। সময় হয়েছে সেগুলোকে রিমুভ করার। একটা একটা করে এপ রিমুভ করা বা আনইনস্টল করা একটু কষ্টসাধ্য, সুতরাং সে কাজ একত্রে করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন Simple Uninstaller app টি।

৫. ফাইল ট্রান্সফার করে এসডি কার্ডে নিয়ে যান

এটা খুব কমন একটা স্ট্র্যাটেজি, অনেকেই ফলো করেন। আপনার ফোনের ইন্টার্নাল স্টোরেজ ফুরিয়ে আসতে চাইলে সেখানকার গান, ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্ট ইত্যাদি জিনিস ইন্টারনাল স্টোরেজে সরিয়ে নিতে পারেন, ফলে ইন্টারনাল স্টোরেজের উপর চাপ কমে যাবে। এটা ফোনের ফাইল ম্যানেজার দিয়েও করতে পারেন কিংবা কম্পিউটার ব্যবহার করেও করতে পারেন। একটা ক্যাবল দিয়ে ফোন পিসিতে কানেক্ট করে এরপর ওটা দ্বারা ফোন মেমোরির ফাইল কাট করে নিয়ে এসডি কার্ডের মধ্যে পেস্ট করে দিলেই হবে।


৬. গুগল ম্যাপসের অফলাইন এরিয়াগুলো রিমুভ বা এসডি কার্ডে নিন

গুগল ম্যাপসের অফলাইন এরিয়াগুলো বেশ ভালো কাজে দেয়, সন্দেহ নেই। কিন্তু যথেষ্ট জায়গাও দখল করে স্টোরেজের। তাই, এমন যদি হয় যে আপনার ম্যাপসের কোনো অফলাইন করে রাখা এরিয়া এখন আর কাজে লাগছে না সেক্ষেত্রে সেই এরিয়া রিমুভ করে দিন বা লোকেশনটি এসডি কার্ডে নিয়ে আসুন।

গুগল ম্যাপসের নেভিগেশন ড্রয়ার ওপেন করুন এবং এরপর Offline areas এ ট্যাপ করুন। দেখতে পাবেন সেইভড এরিয়াগুলো। এবার অপ্রয়োজনীয় এরিয়া দেখে দেখে ট্যাপ করুন ও পরবর্তী পেইজের ডিলেটের অপশন থেকে ডিলেট করে দিন।



এবার এরিয়া মুভ করে এসডি কার্ডে নিতে কি করবেন দেখুন। Offline Areas পেইজের উপরে ডানদিকে সেটিংসে ক্লিক করুন, এরপর Storage preferences এ গিয়ে এসডিকার্ড অপশন সিলেক্ট করুন এবং Save ট্যাপ করুন। এখন থেকে আপনার অফলাইন ম্যাপগুলোর ডিফল্ট Storage হয়ে যাবে এসডিকার্ড।



৭. ক্লাউড স্টোরেজ ব্যবহার করুন

আপনি যদি একটা হাইস্পিড ইন্টারনেট কানেকশনের অধিকারী হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার জন্য আশীর্বাদস্বরূপ রয়েছে ক্লাউড স্টোরেজ! জিবির পর জিবি ফাইল আপনি রেখে দিতে পারবেন ক্লাউড Storage এ! নির্ভরযোগ্য একটি ক্লাউড স্টোরেজ বেছে নিন এবং এরপর ইচ্ছেমতো ফাইল সেখানে আপলোড করে রেখে দিয়ে ফোনের ইন্টার্নাল স্টোরেজ খালি করে নিন সহজেই।

৮. এসডি কার্ডকে ইন্টার্নাল স্টোরেজে যুক্ত করে নিন

এই টিপসটি মূলত এন্ড্রয়েড ভার্সন ৬ বা তার উপরে যারা ব্যবহার করছেন তাদের জন্য কার্যকরী। এন্ড্রয়েড মার্শম্যালো একটা নতুন ফিচার এনেছে যা দ্বারা ফোনের ইন্টার্নাল স্টোরেজের সাথে বাইরে থেকে লাগান এসডিকার্ডকে মার্জ্ড করে নেয়া যায়। পুরোটাই তখন ইন্টার্নাল স্টোরেজ হিসেবে কাজ করে, যা নিঃসন্দেহে দারুন !

কাজটি করার আগে অবশ্যই একটা ভালো মানের হাইস্পিডি মেমোরি কার্ড বেছে নেবেন। কেননা, স্লো কিংবা বাজে মেমোরি কার্ডের ইফেক্ট পুরো স্টোরেজের উপরই পড়বে। ভাইরাস এটাক, স্লো হয়ে যাওয়া এসব যথেষ্ট বিরক্তিকর লাগবে যে কারুর কাছেই।

সব রেডি হলে এরপর ফোন থেকে প্রবেশ করুন Settings - Storage & USB এরপর Portable storage এ ট্যাপ করুন। পরবর্তী স্ক্রিনে ট্যাপ করুন Format as internal storage। এরপর আপনাকে জিজ্ঞেস করা হবে যে এসডি কার্ডের সবকিছু মুছে দিয়ে এটাকে ফোনের স্টোরেজের সাথে ফরম্যাট করে দিতে চাচ্ছেন কিনা। এক্ষেত্রে নিশ্চয়ই বলার অপেক্ষা রাখে না যে এসডি কার্ডে জরুরি কিছু থাকলে তা অবশ্যই আগেই অন্য কোথাও স্টোর করে নেবেন। তো এবার Erase & Format চাপুন, ব্যাস..আপনার এসডি কার্ডের সমান স্পেস ইন্টার্নাল স্টোরেজে যুক্ত হয়ে গেল! তবে এই কার্ড বের করার আগে অবশ্যই এটাকে পূর্বের মতো পোর্টেবল স্টোরেজ আকারে ফরম্যাট করে নিতে ভুলবেন না!



ছবি সংগৃহীত: Beebom.com

ইন্টার্নাল স্টোরেজ ফুরিয়ে যাবার ঝামেলা আর না!

প্রতিনিয়ত আমাদের ফোনে নানান ফাইল ফোল্ডার আমরা যুক্ত করে চলেছি। যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন ছবি, গান, ভিডিও আরো কতশত ডকুমেন্ট। কিন্তু আমাদের স্টোরেজ সেই একই থেকে যাচ্ছে। তাই আজকের এই আর্টিকেলে আমি তুলে ধরলাম সবচেয়ে কার্যকরী ৮ টি উপায়কে, যেগুলোর মাধ্যমে আমরা খুব সহজেই ফোনের ইন্টার্নাল স্টোরেজ স্পেইস বাড়িয়ে নিতে পারবো। যখনই স্টোরেজ কমে যাবে, এই আর্টিকেলটিকে একটা চেকলিস্টের মতো ব্যবহার করে একে একে বিভিন্ন স্টেপ ফলো করতে করতে পারেন। আশা করছি চমৎকার ফলাফল পাবেন।

লেখাটি ভালো লাগলে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে দিন ও আপনার মতামত জানান। সকলের সর্বাঙ্গীন সুস্বাস্থ্য কামনা করে আজ এখানেই শেষ করছি। ধন্যবাদ।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া